“সেবার মাধ্যমে বিজয়ের প্রকাশ”

১৬ ই ডিসেম্বর , স্বৈরতন্ত্র আর নিপীড়নের বিরুদ্ধে আমাদের বিজয়কে উদযাপন করি আমরা। মহান মুক্তিযোদ্ধাদের দীর্ঘ নয়মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রাম আর প্রচেষ্টা সফল হয় একাত্তরের এই দিনে , আমরা মুক্ত হই।

একবিংশ শতাব্দীর আজকের এই সময়ে আমরা একটি সার্বভৌম জাতি, কোন অত্যাচারী আগ্রাসকের হুমকি দ্বারা আজ আমরা আর বিচলিত নই। তারপরও আমাদেরকে দারিদ্র, সুশিক্ষার অভাব, অশিক্ষা ,দূর্নীতি ইত্যাদির প্রবল উত্পীড়ন আর হুমকির মধে বাস করতে হয়। এবার সময় এসেছে বর্তমান প্রজন্মের একটি উন্নত জীবনের জন্য সংগ্রাম করার।

আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা সেই সময় স্বেচ্ছায় দেশের সেবায় সেই কাজটিই করেছিলেন, যা ওই মুহুর্তে ছিল সবচেয়ে প্রয়োজনীয়। এখন আমাদের সময়ে আমাদেরতো স্বেচ্ছাপ্রণোদিত হয়ে সেই সেবামূলক কাজগুলো করতে হবে যা এখন সবচেয়ে প্রয়োজনীয় , যদি সত্যিই আমরা আমাদের মহৎ যোদ্ধাদের চেতনায় ধারণ করি! তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর এরচেয়ে প্রকৃত কোন পন্থা আর কি হতে পারে ?

এই ষোলই ডিসেম্বরে আসুন না স্বাধীনতার যোদ্ধাদের পরাক্রমতা আর ত্যাগকে স্মরণ করি কিছু সেচ্ছাসেবা মূলক কাজের মাধ্যমে, শুধু কিছু শূন্যগর্ভ কথা কিংবা গান আর আবৃত্তি নয় বরং অন্তত একটি হলেও সেবামূলক কাজ করি কমিউনিটির জন্য।
ছোট ছোট করেই হোকনা , দেশের বিভিন্ন অর্গানাইযেশন , কর্পোরেশন , স্কুল , কলেজ , ইউনিভার্সিটি , হাসপাতাল , শপ , মিডিয়া আউটলেট … থেকে অল্প কিছু সেবা বাংলাদেশকে নতুন আরেকটি মুক্তি আন্দোলনের পথে এগিয়ে দিতে পারে অনেকদূর।

সব অংশগ্রহনকারী সংগঠন কাজ করবে স্বাধীনভাবে , শুধু “ স্বেচ্ছায় সমাজসেবামূলক ” কাজ এর ব্যাপারটা একইরকম থাকবে এবং সবাই একতাবদ্ধ হবে একই ব্যানারএ-

“সেবার মাধ্যমে বিজয়ের প্রকাশ”

একমাত্র সেবা আর সেবামূলক চিন্তার মাধ্যমেই আমরা কঠিন প্রতিবন্ধকতাগুলো থেকে মুক্তি পেতে পারি। নিঃস্বার্থ সেবাই বয়ে আনতে পারে সাফল্য।

অংশগ্রহনঃ

প্রবাসে বসবাস কারী বাংলাদেশীরা এর সাথে যোগদান করতে পারেন যে কোন ধরণের চ্যারিটি তাদের স্থানীয় বাঙ্গালী কমিউনিটি তে আয়োজন করে অথবা আপনারা আপনাদের একঘন্টার স্যালারী ডোনেট করতে পারেন দেশে এমন একটি কাজে যা আপনারা সমর্থণ করেন।

আপনি যদি বাংলাদেশের অভ্যন্তরে থাকেন এবং কোন সংগঠনের সদস্য হোন ,তাহলে আপনি আপনার সংগঠনকে যুক্ত করতে পারেন “সেবার মাধ্যমে বিজয়ের প্রকাশ” এ। আপনাদের অংশগ্রহনের কথা নিশ্চিত করে আমাদের ই-মেইল করুন , volunteer.for.bangladesh@gmail.com

আপনি যে কমিউনিটি সার্ভিসের মাধ্যমে ষোলই ডিসেম্বর উদযাপন করবেন , তা মেইলে উল্লেখ করুন।আপনার মতামত , পরামর্শ ও আমাদেরকে লিখে জানান। অথবা আপনি আমাদের জানতেও লিখতে পারেন। আপনার নিশ্চিতকরণের পরে আমরা আপনাদের নাম/লোগো ফাইনাল ব্যানারে সংযুক্ত করবো। আর আপনি যদি কোন অর্গানাইযেশনে না থেকে থাকেন , সেটাও আমাদের জানান যদি সেবার মাধ্যমেই বিজয় উদযাপনে আমাদের সমর্থন করে থাকেন , এবং কাজ করতে আগ্রহী হন।

Source: http://www.volunteerforbangladesh.blogspot.com/

What do you picture when you say “Bangladesh”?

by Max Vergil

Different countries create different images in our head when we hear their name. For instance, ‘Iraq’ makes us visualize war, ‘China’ makes us think of communism and its Great Wall, etc. However, as Bangladesh is not yet a well known country, it does not trigger anything specific in the minds of foreigners who don’t know about it. Sadly, those who do know about it, think about poverty, flood, terrorism, crime and corruption when they hear the name ‘Bangladesh’. But Bangladesh is not all bad- it has so many good things that holds the country together that people do not value or recognize. These are the things that should come to our and other people’s mind around the world when they hear the word ‘Bangladesh’.

One of the main things that the world should recognize as ‘Bangladesh’ is the hope that every average Bangladeshi has in his/her heart of a better tomorrow. This hope is what drives us, keeps us going through this living nightmare of everyday life. We carry on with our life and struggle for a better one only because we have the hope that someday our lives will be better. It’s our driving force. That is why the world should recognize ‘Bangladesh’ as a symbol of hope.

Bangladesh Flag

However, the main thing that the world should recognize as ‘Bangladesh’ is

the tireless, never ending spirit that the people of this country harbor. This spirit won us our mother tongue, it won us our freedom, and it will win us our rights. This spirit is what that keeps us dreaming of a better future, this is the thing that keeps our culture alive in our hearts against all adversities; this is

the thing that makes us ‘Bangali’. Therefore, if the world should recognize ‘Bangladesh’ as anything, it should recognize it as the evergreen, always burning, never dimming spirit that we cherish.